কালোজিরা- কালোজিরার উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

Food Habit General Queries

কালোজিরা কি?

আমাদের নিত্যদিনের অতি পরিচিত একটি মসলা হচ্ছে কালোজিরা বা Black Cumin বা Nigella. এটি শুধু মসলাই নয় এর রয়েছে ওষুধী গুণও। ইউনানী, কবিরাজি কিংবা আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় এর ব্যবহার অনেক। বিভিন্ন রোগের ঔষধ হিসেবে এর ব্যবহার অনেক পুরনো। নানা রোগের ঔষধ হিসেবে পরিচিত এই মসলা সকল রোগের মহৌষধ নামেও পরিচিত।

গাছ থেকে পাওয়া এই মসলা আকারে ছোট কিন্তু এর উপকারিতা অনেক। মানুষের দেহের নানাবিধ উপকারে কাজে লাগে এই কালোজিরা। অনেক উপকারী এই মসলা নিয়েই আমাদের আজকের আলোচনা।

কালোজিরার উপকারিতা

নানা উপকার করে থাকে ঔষধি গুণসম্পন্ন কালোজিরা। এর উপকারিতা সমূহ এবার জেনে নেওয়া যাক।

হজমশক্তি বাড়াতে

প্রতিদিন অল্প করে এই মসলা বেটে খেলে হজমশক্তি বাড়ে। পাশাপাশি পেট ফাঁপা কিংবা এ জাতীয় অন্য সমস্যাও দূর হয়।

ওজন বা অতিরিক্ত চর্বি কমায়

প্রতিদিন সকালে কালোজিরার সাথে ১ চামচ মধু মিশিয়ে খেলে দেহ থেকে অতিরিক্ত চর্বি কমে যায়। ফলে ওজনও কমে।

স্মৃতিশক্তি বাড়ায়

এই মসলায় আছে অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যান্টিসেপটিক পদার্থ যা মস্তিষ্কের রক্তসঞ্চালন বাড়ায়। ফলে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়। পাশাপাশি মেধার বিকাশ ঘটাতেও এই মসলা ভূমিকা রাখে।

ডায়াবেটিস রোগীর উপকারে

রক্তের গ্লুকোজ কমিয়ে দেহের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এটি সাহায্য করে। পাশাপাশি কালোজিরার তেল ডায়াবেটিস রোগীদের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

বাতের ব্যথা কমায়

কালোজিরার তেল মালিশে বাতের ব্যথা দূর হয়। পাশাপাশি কাঁচা হলুদের সাথে কালোজিরা ও মধু মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়।

মাথা ব্যথা দূর করে

মাথা ব্যথা কমাতে এই মসলা থেকে তৈরি তেলের ব্যবহার অনেক পুরনো। কালোজিরার তেল মাথায় মাখলে মাথা ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যেতে পারে।

ত্বকের উপকারে

কালোজিরার তেলের সাথে লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগালে ব্রণ ও ত্বকের দাগ সহ ত্বকের নানাবিধ সমস্যায় উপকার পাওয়া যায়।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও কালোজিরার রয়েছে দারুণ ভূমিকা। নিয়মিত এটি খেলে দেহের রোগপ্রতিরোধ ব্যবস্থা উন্নত হয়।

কালোজিরা- কালোজিরার উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

দাঁতের ব্যথায়

দাঁতের ব্যথায় কুসুম গরম পানির সাথে কালোজিরা মিশিয়ে কুলকুচি করলে উপকার পাওয়া যায়। এতে দাঁতে আক্রমণকারী জীবাণু মরে যায়।

চুল পড়া সমস্যায়

চুল পড়া বন্ধ করতে প্রতিদিন এই মসলা খেতে পারেন। পাশাপাশি এর তেল চুলে মালিশ করতে পারেন। এতে চুলের গোড়া শক্ত হবে এবং চুল পড়া বন্ধ হবে।

স্তনদুধ বাড়াতে

প্রতিদিন রাতে দুধের সাথে ৫ থেকে ১০ গ্রাম কালোজিরা মিশিয়ে খেতে পারেন। এতে এক্ষেত্রে উপকার পাবেন। এছাড়াও ১ চামচ কালোজিরার তেল ১ চামচ মধুর সাথে মিশিয়ে ৩ বেলা খেলেও উপকার পাবেন।

অনিয়মিত মাসিকের সমস্যায়

কালোজিরার সাথে কাঁচা হলুদের রস কিংবা আতপ চাল ধোয়া পানি মিশিয়ে প্রতিদিন খেলে নারীরা অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

যৌনক্ষমতা বাড়ায়

যৌনসক্ষমতা বাড়াতে নারী ও পুরুষ উভয়ই খেতে পারেন কালোজিরা। নিয়মিত এটি খেলে পুরুষের বীর্যের পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। মাখন, জাইতুন তেল মিশিয়ে এটি খেলে বিশেষ উপকার পাবেন।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে

নিয়মিত মধু ও কালোজিরার তেল একসাথে খেলে দেহের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই নিয়মিত মধুর সাথে এই তেল মিশিয়ে খান। এতে উচ্চরক্তচাপের ঝুঁকি কমবে।

চর্মরোগ কমায়

চর্মরোগের স্থানে কালোজিরার তেল মালিশ করলে উপকার পাওয়া যায়। এছাড়াও মধু বা কাঁচা হলুদের সাথে মিশিয়ে এটি খেলেও উপকার পাবেন।

শ্বাসকষ্ট দূর করতে

শ্বাসকষ্ট বা হাঁপানির সমস্যা থাকলে নিয়মিত কালোজিরার বাটা বা ভর্তা খান। এতে উপকার মিলবে। চাইলে দুধ কিংবা রঙ চা এর সাথে মিশিয়েও এটি খেতে পারেন। এতে হাঁপানি ও শ্বাসকষ্ট দূর হবে।

লিভারের সমস্যায়

লিভারের ক্যান্সার একটি মারাত্মক রোগ। এই রোগের জন্য দায়ী আফলা টক্সিন। এই আফলা টক্সিনকে বিনাশ করতে কালোজিরা বিশেষ কার্যকর। তাই এটি খেলে লিভার সুস্থ থাকে ও ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।

শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশে

ছোট শিশুদের দেহের গঠন ও মানসিক বিকাশে কালোজিরার তেল একটি দারুণ কার্যকর উপাদান। নিয়মিত এই তেল মালিশে শিশুদের দেহের গঠন দৃঢ় হয়। পাশাপাশি খাওয়ানোও যেতে পারে শিশুদের। তবে খাওয়ানোর ক্ষেত্রে দুই বছরের কম বয়সের বাচ্চাদের না খাওয়ানোই ভালো।

কালোজিরা খাওয়ার নিয়ম

কালোজিরা খাওয়ার তেমন কোনো নিয়ম আসলে নেই। মূলত রান্নাতেই এটি বেশি ব্যবহার করা হয়। তবে চাইলে আরও বিভিন্নভাবে এটি খাওয়া যায়।

কালোজিরার তেল

কালোজিরা থেকে তেল বানিয়ে খাওয়া যায়। এটিও দেহের জন্য উপকারী। এর উপকারিতা আমরা ইতোমধ্যেই জেনেছি।

মধু ও কালোজিরা

মধুও কালোজিরার মতোই উপকারী একটি খাদ্য। আর এ দুটিতে একসাথে মিশিয়ে খেলে এর উপকার বেড়ে যায় বহুগুণ। মধুর উপকারিতা সম্বন্ধে আরও জানুন: মধুর উপকারিতা।

কালোজিরা ও টক দই

চাইলে টক দই এর সাথে মিশিয়েও এটি খেতে পারেন। দেহের ওজন ও চর্বি কমাতে এই খাবার বেশ কার্যকর।

রসুন ও কালোজিরা

রসুন ও কালোজিরা খেতে পারেন একসাথে। এতে করে যৌনক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। আরও জানুন: সেক্সে রসুনের উপকারিতা।

কালোজিরার অপকারিতা

কালোজিরার আসলে তেমন কোনো অপকারিতা নেই। তবে দুই বছরের কম বাচ্চাদের ক্ষেত্রে এটি না খাওয়াই ভালো এবং গর্ভবতী মায়েদেরও এটি খাওয়া ঠিক না। এছাড়াও যাদের এলার্জির সমস্যা থাকলেও এটি খাওয়া থেকে বিরত্ত থাকা ভালো। এছাড়া আসলে এর তেমন কোনো অপকারিতা নেই বললেই চলে।

শেষকথা

কালোজিরা একটি অত্যন্ত উপকারী মসলা। তাই এটি নিয়মিত খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এতে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। পাশাপাশি বিভিন্ন রোগ থেকেও মুক্তি মিলবে সহজেই। তাই এসব বিষয় মাথায় রেখে আজ থেকেই শুরু করে দিন এটি খাওয়া।

আরও পড়ুন

কাজু বাদাম এর উপকারিতা।
ইলিশ মাছের পুষ্টিগুণ।
থানকুনি পাতার নানা উপকারিতা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

All Rights Reserved By Healthjus © 2021-2022