থানকুনি পাতা-থানকুনি পাতার উপকারিতা ও খাওয়ার নিয়ম

Food Habit General Queries

থানকুনি পাতা (Indian Pennywort) আমাদের দেশের একটি অন্যতম উদ্ভিদ বা পাতা। এটি একটি ভেষজ ওষুধও। বিভিন্ন রোগের ভেষজ ঔষধ হিসেবে বহু কাল আগে থেকেই এই পাতা ব্যবহৃত হয়ে আসছে। গ্রামাঞ্চলে ভেষজ হিসেবে এর ব্যবহার অনেক পুরনো। এটি দেখতে গোলাকার ও ছোট আকৃতির একটি পাতা।

উপকারী এই পাতা অঞ্চলভেদে ভিন্ন ভিন্ন নামে পরিচিত। আদামনি, টেয়া, আদানগুনি, ঢোলামনি, মানকি, মানামানি ইত্যাদি বিভিন্ন নামে এটি বিভিন্ন অঞ্চলে পরিচিত। তবে এখন আর এত ভিন্ন নামে একে কেউ ডাকে না। এখন বরং থানকুনি পাতা নামেই সবাই একে সহজে চিনে।

থানকুনি পাতার উপকারিতা

অবহেলা, অযত্নে বেড়ে উঠা থানকুনি পাতার উপকারিতা অনেক। আমরা এর যত্ন না নিলেও এটি কিন্তু ঠিকই আমাদের নানাবিধ উপকারে লাগে। তিতা স্বাদযুক্ত এই পাতার উপকারিতা আজ জানবো।

  • দেহের রক্তপ্রবাহ ঠিক রাখতে এই পাতার রয়েছে দারুণ উপকারিতা। থ্রম্বোসিস জাতীয় নানা প্রকার রোগের কারণে অনেক সময় দেহের রক্তপ্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয়। এক্ষেত্রে থানকুনি পাতার রস খেলে এই রস দেহের সকল কোষে অক্সিজেন যুক্ত রক্ত পৌঁছে দেয় ও রক্তপ্রবাহ স্বাভাবিক রাখে।
  • দেহের কোথাও কেটে গেলে বা ক্ষত হলে সে স্থানে এই পাতা বেটে লাগালে ব্যথা কমে। পাশাপাশি এই পাতা বেটে লাগালে রক্ত পড়াও বন্ধ হয়।
  • এই পাতার রস দেহের ক্লান্তি ও অবসাদ দূর করতে খুবই কার্যকর। তাই ক্লান্তি দূর করতে খেতে পারেন থানকুনি পাতার রস।
  • এই পাতা প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ। এই ভিটামিন-সি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।
  • থানকুনি পাতায় থাকা অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটারি উপাদান শরীরের জ্বালাপোড়া দূর করতে সাহায্য করে। দেহের কোথাও জ্বলাপোড়া বা যন্ত্রণা হলে এই পাতা বেশ কাজ করে।
  • এই পাতার রস মানুষের হজমশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।
  • এই পাতার রস খেলে মানুষের দেহের স্ট্রেস হরমোন নিয়ন্ত্রণে থাকে। ফলে মানসিক চাপ ও অবসাদ দূর হয়ে যায়। পাশাপাশি মানসিক শান্তি দেয়। ফলে অ্যাংজাইটি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।
  • পেটের বিভিন্ন রোগে থানকুনি পাতার রস খুবই উপকারী।
  • আলসার ও আমাশয়ের মতো রোগে এই পাতার রস খেলে রোগী দ্রুত আরোগ্য লাভ করে।
  • মস্তিষ্কের উপকারেও এই পাতা কার্যকর। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট মস্তিষ্কের পেন্টাসারক্লিক টিটারপেনস নামক উপাদানকে বাড়িয়ে দেয়। ফলে মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। একই সাথে স্মৃতিশক্তি ও বুদ্ধিও বাড়ে।
  • কাশি হলে থানকুনি পাতা একটি দারুণ কার্যকর ঔষধ। ২ থেকে ৩ চামচ থানকুনি পাতার রস খেলে কাশি উধাও হয়ে যায় সহজেই।
  • এই পাতা পানিতে ভিজিয়ে সেই পানি খেলে দেহের স্নায়ু স্থির হয়। ফলে তা ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে। তাই ঘুমের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে খেতে পারেন এই পাতা ভিজানো পানি।
  • গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থাকলে নিয়মিত থানকুনি পাতার রস খান। এতে সহজেই মুক্তি মিলবে গ্যাস্ট্রিক থেকে।
  • জ্বরের সময় এই পাতা ও শিউলি পাতা রস করে একসাথে খেলে সহজে জ্বর কমে যায়। এ সম্বন্ধে আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে বলা আছে।
  • পায়ের ব্যথা বা ফোলা কমাতেও এই পাতা বেশ কার্যকর।
  • থানকুনি পাতার বাটার সাথে মধু মিশিয়ে নিয়মিত মুখে লাগিয়ে দেখুন। আপনার ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বেড়ে যাবে বহুগুণ।
থানকুনি পাতার উপকারিতা
থানকুনি পাতা।

থানকুনি পাতা খাওয়ার নিয়ম

থানকুনি পাতা কিভাবে খাবেন এ বিষয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে। আসুন জেনে নিই কিভাবে খেতে পারেন এই পাতা।

  • গরম ভাতের সাথে ভর্তা করে খেতে পারেন এই পাতা।
  • কুসুম গরম পানির সাথে মিশিয়ে থানকুনি পাতার রস খেতে পারেন প্রতিদিন খালি পেটে। উপকার মিলবে দ্রুতই।
  • গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় এই পাতার রস খান কাঁচা দুধের সাথে মিশিয়ে। সহজেই দূর হয়ে যাবে গ্যাস্ট্রিক।
  • এই পাতা পেট পরিষ্কার করে। এজন্য থানকুনি খেতে পারেন কাঁচা চিবিয়েই। পেট পরিষ্কার থাকবে এতেই।
  • মধু মিশিয়ে এই পাতার রস খেতে পারেন। রক্ত পরিষ্কার হবে এতে।
  • লিভারের সুস্থতায় থানকুনি পাতার রস খান, সাথে মিশিয়ে নিন কাঁচা হলুদ। এতে আপনার লিভার সুস্থ থাকবে।
  • কাশি হলে ২-৩ চামচ থানকুনি পাতার রসের সাথে অল্প চিনি মিশিয়ে প্রতিদিন খান। কাশি চলে যাবে পুরোপুরি।

থানকুনি পাতার অপকারিতা

থানকুনি পাতা উপকারী হলেও এটি বেশি খেলে হতে পারে কিছু ক্ষতিও। এরও রয়েছে বেশ কিছু অপকারিতা। আসুন জেনে নিই এই পাতার অপকারিতাসমূহ।

  • পেট খারাপ হলে এই পাতা উপকার করে ঠিকই। কিন্তু পেট খারাপের সময় এই পাতা বেশি খেলে হিতে বিপরীত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তখন পেট খারাপ আরও বেড়ে যেতে পারে।
  • এই পাতা থেকে অনেকের এলার্জির সমস্যা হতে পারে৷ পাশাপাশি খোসপাঁচড়াও হতে পারে।
  • এই পাতা অতিরিক্ত খেলে মাথা ঘোরাতে পারে।
  • অপারেশনের রোগীর এই পাতা খাওয়া উচিৎ নয়।
  • লিভারের সমস্যায় আক্রান্ত রোগীরা এই পাতা না খাওয়াই ভালো। এই ধরনের রোগীরা এটি খেলে সমস্যায় পড়তে পারেন।

উপসংহার

থানকুনি পাতা আমাদের অনেক উপকার করলেও এর যত্ন কিন্তু আমরা তেমন একটা করি না। অবহেলা কিংবা অযত্নে পড়ে থাকা এই পাতার উদ্ভিদকে অনেক সময় আমরা না বোঝে কিংবা সজ্ঞানে মেরে ফেলে বা ফেলে দিই। ঝোপঝাড় পরিষ্কার করতে গিয়েও অনেকে এই উপকারী উদ্ভিদ মেরে ফেলেন। কিন্তু এই উপকারী পাতা বা উদ্ভিদের প্রতি যত্নশীল হলে দিনশেষে এর লাভ আমরাই পাবো। তাই এই উদ্ভিদের প্রতি যত্নশীল হওয়া উচিৎ আমাদের। এতে আমাদেরই লাভ।

আরও পড়ুন

ঘি এর উপকারিতা।
লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা।
মাথা ব্যথা হলে কি করবেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

All Rights Reserved By Healthjus © 2021-2022