মেথি – মেথির উপকারিতা ও অপকারিতা এবং গুণাগুণ

Health and Body General Queries

মেথি কি?

মানুষের দেহের জন্য উপকারী অন্যতম ভেষজ একটি উপাদানের নাম হল মেথি। এর স্বাদ তিতা। আর এই তিতা স্বাদের জন্য অনেকের কাছেই এটি একটি অপছন্দের জিনিস। তবে স্বাদ যেমনই হোক এর পুষ্টিগুণ কিন্তু অনেক।

একে ইংরেজিতে বলা হয় “Fenugreek”। সুস্থ জীবনের জন্য এটি হতে পারে এক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এটি যেমন মসলা হিসেবে ব্যবহার করা যায়, তেমনি রোগীর পথ্য হিসেবেও এটি কার্যকরী। আয়ুর্বেদিক কিংবা ইউনানী বা কবিরাজী চিকিৎসায় বরাবরই মেথির ভূমিকা অপরিসীম। মৌসুমী এই ফসলের গাছের পাতা গ্রামাঞ্চলে শাক হিসেবেও খাওয়া হয়।

মেথির পুষ্টি

মেথিতে রয়েছে অনেক পুষ্টি উপাদান বা পুষ্টি গুণাগুণ। এটি যেমন দেহের ক্যালরি চাহিদা মেটায় তেমনি একই সাথে অন্যান্য পুষ্টি উপাদানও রয়েছে এতে। ক্যালরি ছাড়াও মেথিতে রয়েছে প্রোটিন, কার্বোহাইড্রেট, ফাইবার, আয়রন, চর্বি, ম্যাঙ্গানিজ ও ম্যাগনেসিয়াম। দেহের প্রয়োজনীয় প্রায় সকল উপাদানই রয়েছে এতে।

মেথির রয়েছে অনেক গুণ।

মেথির উপকারিতা

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় অন্যতম একটি উপাদান হল মেথি। এটি খাওয়ার উপকারিতা অনেক। এটি দেহের অনেক উপকার করে থাকে। রান্নার মসলা কিংবা আয়ুর্বেদিক বা অন্য কোনো ঔষধ হিসেবেও এর উপকারিতা অনেক। আসুন জেনে নিই মেথি থেকে কি কি উপকারিতা পাওয়া যায়।

ডায়াবেটিসে মেথি

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য মেথি হতে পারে একটি দারুণ ঔষধ। এর মধ্যে রয়েছে ফাইবার ও অন্যান্য উপাদান যারা দেহের গ্লুকোজ ও শর্করার মাত্রা কমায়। ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে সহজেই। এছাড়াও এতে রয়েছে হজমশক্তি বাড়ানো ও কার্বোহাইড্রেট শোষণ করার ক্ষমতা। তাই এটি খেলে দেহের ইনসুলিন নিয়ন্ত্রণের মাত্রা বৃদ্ধি পায় যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

চুলের যত্নে মেথির উপকারিতা

মেথিতে থাকা ভিটামিন-এ ও ভিটামিন-সি চুলকে শক্তিশালী ও মজবুত করে এবং চুলের ঝরে পড়া রোধ করে। এতে আছে লিথিসিন (Lithisin) নামক এক উপাদান যা চুলের ঝরে পড়া রোধ করে। পাশাপাশি চুলের খুশকি দূর করতেও মেথির রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

এছাড়াও এতে থাকা জেলেটিন চুলের ঔজ্জ্বল্যতা বাড়ায়। তাছাড়া মেথিতে আছে ভিটামিন-ই যা চুলের জন্য অত্যন্ত উপকারী একটি উপাদান। এছাড়াও এটি মেলানিন তৈরিতেও সাহায্য করে যা চুলের রঙ ধরে রাখতে কার্যকর।

ত্বকের যত্নে মেথির উপকারিতা

ত্বকের জন্যও উপকারী একটি খাদ্য উপাদান হল মেথি। ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে এটি। এছাড়াও চোখের কালো দাগ দূর করতেও এর রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। এতে থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল পদার্থ ব্রণের দাগ দূর করতে সাহায্য করে।

যৌনশক্তিতে মেথির ভূমিকা

যৌন সমস্যাতে মেথি বেশ কার্যকর। পুরুষদের টেস্টোস্টেরন হরমোন বাড়াতে এটির ভূমিকা রয়েছে। পাশাপাশি মানবদেহের হরমোন স্তর নিয়ন্ত্রণেও এটি বেশ কার্যকর।

খালি পেটে মেথি কেন খাবেন?

মেথি কিন্তু চাইলে প্রতিদিন সকালে খালি পেটেও খেতে পারেন। এতেও পাবেন অনেক উপকারিতা। খালি পেটে খেলে মেথির উপকারিতা এবার জেনে নিই।

  • মেথিতে থাকা ফাইবার আমাদের দেহের ওজন কমাতে সাহায্য করে। খালি পেটে এটি খেলে ফাইবারের কারণে আমাদের ক্ষুধা কম লাগে। ফলে অন্য খাবার খাওয়ার ইচ্ছা কম হয়। এর ফলে সহজেই ওজন হ্রাস পায়।
  • স্টেরিওডাল সেপোনিনস নামক একটি উপাদান আছে মেথিতে। এই উপাদান রক্তের কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। খালি পেটে এটি খেলে রক্তের কোলেস্টেরল তাই নিয়ন্ত্রণে থাকে।
  • খালি পেটে এটি খেলে এতে থাকা গ্লেকটোম্যানান নামক উপাদান হৃদযন্ত্রের কর্মক্ষমতা বাড়ায়।
  • রক্তে থাকা বিভিন্ন টক্সিক বা বিষাক্ত উপাদান দেহ থেকে বের করে দেয় মেথি। ফলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে। এছাড়াও এতে থাকা ট্রাইগ্লিসেরাইড নামক উপাদান ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।
  • যাদের বাতের ব্যথার সমস্যা আছে তারা নিয়মিত খালি পেটে মেথি খেলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে।
  • মেথিতে থাকা ডায়োসজেনিন নামক উপাদান মাতৃদুগ্ধের পরিমাণ বাড়ায়। পাশাপাশি এটি বুকের দুধের ভিটামিন, মিনারেলের মতো পুষ্টিগুণও বাড়িয়ে দেয়।
  • মেথির রস দিয়ে তৈরি চা কিংবা সরাসরি রস খেলে কিডনি পরিষ্কার থাকে। পাশাপাশি মূত্রথলিও সুস্থ থাকে এবং কিডনির কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।
  • দেহে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের মতো উপাদানের পরিমাণ ঠিক রেখে দেহের ভারসাম্য বজায় রাখে।
  • মেয়েদের পিরিয়ডের ব্যথায় মেথি হতে পারে দারুণ একটি সমাধান। পিরিয়ডের প্রচন্ড ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে পিরিয়ডের প্রথম তিন দিন মেথির গুঁড়া খেলে দারুণ উপকার মিলে।
মেথি - মেথির উপকারিতা ও অপকারিতা এবং গুণাগুণ
বাটিতে থাকা মেথি।

মেথির অপকারিতা বা ক্ষতিকর দিক

মেথির অনেক উপকারিতার মধ্যেও রয়েছে এর কিছু অপকারিতা। এ সকল অপকারিতা এবার জেনে নিই।

  • এর তিতা স্বাদের কারণে অনেক সময় বমি বমি ভাব বা বমি হতে পারে। এ থেকে অনেক মাথা ঘোরা বা মাথাব্যথার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে এটি খেলে অনেক সময় রক্তে সুগারের পরিমাণ কমে যেতে পারে যা থেকে ডায়াবেটিস রোগীদের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।
  • এতে থাকা কৌমারীন নামক উপাদান রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে যাদের রক্ত পাতলা তাদের জন্য সমস্যার কারণ হতে পারে এটি।
  • এটি বেশি খেলে গর্ভপাতের ঝুঁকি থাকে। তাই গর্ভবতী মায়েরা এটি খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ।

পরিশেষে

মেথি একটি উপকারী খাদ্য উপাদান এটি যেমন সত্যি, তেমনি এর কিছু ক্ষতিকর দিকও আছে। তবে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করলে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চললে এ সকল ক্ষতি থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আর এ সকল ক্ষতি এড়িয়ে চলতে পারলেই এই খাবার থেকে সম্পূর্ণ উপকারিতা গ্রহণ সম্ভব।

আরও পড়ুন

ইলিশের উপকারিতা।
মধু খেলে কি হয়?
কাজু বাদাম কেন খাবেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

All Rights Reserved By Healthjus © 2021-2022